রবিবার, ৯ নভেম্বর, ২০১৪

জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া ব্রাক্ষণবাড়ীয়া | Jamia Islamia younuosia brahmanbaria



আল-
জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া ব্রাক্ষণবাড়ীয়া
|
|
যার প্রতিষ্ঠের পিছনে মদীনার
ইশারা রয়েছে , যাকে প্রতিষ্ঠ করার
লক্ষ্যে রয়েছে আওলিয়াকেরামের
চোখের অশ্রু ।
এমনি একজন সাধক ভারতের মুজাফ্ফর নগর
থেকে গমন করেন শহীদবাড়ীয়ার পিষ্ঠে
তখনকার কাদিয়ানী ফিত্না এমন
ভাবে মাথাচাড়া দিয়ে গজিয়ে ছিল যেন
বিভ্রান্তির
বেড়াজালে আটকিয়ে দিবে উক্ত
উম্মতে মুহাম্মদীকে ,
তাদের সেই ভন্ডামির কবল
থেকে ব্রাক্ষণবাড়ীয়াবাসীকে মুক্ত
করতে মদিনাওয়ালার স্বপ্নের ইশারায়
দূর্গমঘিরী পথ অতিক্রম
করে ব্রাক্ষণবাড়ীয়া পৌঁছেন ,
এবং প্রতিষ্ঠা করেন উম্মুল মাদারিসিল
কাওমীয়া ।

যাকে ধিরে ধিরে অক্লান্ত পরিশ্রমের
মাধ্যমে বহুতল বভন বিশিষ্ট একটি এলেমের
মার্কায হিসেবে গড়ে তুলেন

মঙ্গলবার, ৪ নভেম্বর, ২০১৪

تراسے حضرات علمآۓدین / مفتی سراجی

محترام دوست وبزرگ"

میرے طرف سے آپ لوگوں کے پاس چوٹا درخواست
،
حق جلجلاله کے حکم شریعت
اور انکی اپنے رسول پاک صلی الله علیه وسلم کےسنّت بجلانے کےکوشش هم سب بندوں پر لازم هواھے
اس کی علاوه دنیا میں کوٸ  کام میں کامیابی نهیں؛

دنیاکے شروع سے همارے نبی تک جتنے رسول اورنبی آیا تها  سب کے سب اپنے آقا کے تابعدار لوگوں کو بنانے کے یهی کوشش کرتاتها
،
اس وجه سے بهت پیغمبر جان کی ختراچوڑ کر
تعلقات مولی انسان میں پیدا کیا
اور کافر مشرک کی طرف سےتکلیف برداشت کیا تها

بهایوں دوست و بزگ 
صرف نبوت کے درجه ختم هوا 
دعوات ایمان کے ختم نهیں
اس تبلیغ نیےانجام هوا کوٸ کام نهیں

فرمایا آپ صلعم نے
بَلِِّغُو٘ا عَنِّی٘ وَلَو٘ أیَه





انشاالله اجتماع کے میدان میں ملاقات هوگا

শনিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৪

আমাদের সনদ

কিছু জ্ঞান
পাপিরা বলে ক্বওমী মাদ্রাসার কোন
সার্টিফিকেট নাই।



আমরা বলি সরকারি সার্টিফিকেট কচু
পাতা আর কলা পাতা মত। 
আমাদের
সার্টিফিকেট স্বয়ং আল্লাহ পদত্ত
সার্টিফিকেট। আমাদের
সার্টিফিকেটের মত সার্টিফিকেট
পৃথবির কেউ দেখাতে পারবেনা।


দেখুন আমাদের সনদ।আল্লামা আহমদ
শফী তিনার উস্তাদ
হুসাইনআহমদ মাদানি তিনার
উস্তাদ মাহমুদ হাসান
দেওবন্দি তিনার উস্তাদ ক্বাসিম
নানুতবী
 তিনার উস্তাদ শায়েখ আব্দুল
গণী তিনার উস্তাদ শায়েখ ইসহাক্ব
তিনার উস্তাদ শায়েখ আব্দুল আজিজ
দেহলবী

 তিনার উস্তাদ শাহ
ওলিউল্লাহ
মুহাদ্দিসে দেহলবী তিনার উস্তাদ
শায়েখ আবুতাহের মাদানি তিনার
উস্তাদ শায়েখ ইব্রাহিম
কুর্দি তিনার উস্তাদ শায়েখ আহমদ
কেসাসী তিনার উস্তাদ শায়েখ আবুল
ওয়াহাব সানাবী তিনার উস্তাদ
শায়েখ শামসুদ্দিন রমানী তিনার
উস্তাদ শায়েখ আহমদ
জাকারিয়া আনসারি

 তিনার উস্তাদ
শায়েখ আবুল ওয়াহাব সানাবী তিনার
উস্তাদ শায়েখ যায়নুদ্দিন
তানখি তিনার উস্তাদ আবুল আব্বাস
আহমাদ হাজ্জাজি তিনার উস্তাদ
শায়েখ সিরাজুদ্দিন
হাম্বলী জুবাইদী তিনার উস্তাদ
শায়েখ আব্দুল আফফাল হারবি তিনার
উস্তাদ শায়েখ আব্দুর রাহমান
দাউদি তিনার উস্তাদ শায়েখ আবু
মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ সুরাখসী তিনার
উস্তাদ শায়েরখ আবু আব্দুল্লাহ মুহাম্মদ
আলফারওয়ারি তিনার উস্তাদ শায়েখ
ইমাম বুখারি তিনার উস্তাদ হাম্মাদ
তিনার উস্তাদ আব্দুল্লাহ
ইবনে মোবারক তিনার উস্তাদ
ইমামে আজম আবু হানিফা তিনার
উস্তাদ আনাছ ইবনে মালেক তিনার
উস্তাদ আল্লাহর নবীর
সাহাবী আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা:)
তিনার উস্তাদ নবীয়ে কারিম

বৃহস্পতিবার, ৯ অক্টোবর, ২০১৪

কওমি শিক্ষানীতি

কওমী মাদ্রাসার বারান্দা ঘুরে আসুন, মনুষত্ব কাকে বলে দেখে আসুন।


 এক স্কুলের এসিস্ট্যন্ট হেড মাস্টার আমাদের মাদ্রাসায় আসলেন।
তিনি আমাদের পরীক্ষার হলের পিনপতন নিরবতা ও সুষ্ঠু কার্যকলাপ দেখে অবাক হলেন।
তিনি বলেন, আমাদের ফাইনাল পরীক্ষার প্রশ্ন থানায় থাকে।


আপনাদের মত পরীক্ষার আগেরদিন পরীক্ষক সুপারের কাছে সব বিষয়ের প্রশ্ন এভাবে দিয়ে দিলে ছুরিকাঘাতে ঐ টিচারকে হত্যা করে প্রশ্ন নিয়ে উধাও হয়ে যেত। আর আপনাদের মত এভাবে পুলিশ র্যববিহীন পরীক্ষার হল হলে কি অবস্থা হত আল্লাহই ভালো জানে। উনি আরো বলেন, আমাদের তিন সেট প্রশ্ন দিয়ে পরীক্ষা নেওয়া হয়। এত কলাকৌশলের পরও প্রশ্ন ফাঁস হয়ে যায়।
শেষে উনি বলেন, আসলে আপনাদের এখানে ছাত্ররা পাস করার জন্য আসেনা,আসে মনুষত্ব শিখতে।
 আর মনুষত্ব না থাকলে যতই আইন করা হয় না কেন কাজ হবেনা। (উনি আবার তাবলীগে সময় লাগিয়েছেন) স্কুলের পরীক্ষার হলের দৃশ্য দেখার সৌভাগ্য হয়েছিল কিছুদিন আগে। স্যার বলছিলেন, এই পেপার লাগবে?

এক ছাত্র বলে উঠল, স্যার কি পেপার?
আমার দেশ, যুগান্তর নাকি প্রথম আলো?
এমনিতেই সব ছাত্ররা হেসে দিল আর বেচারা স্যারের অন্তর ছারখার হয়ে গেল।
এই হলো স্কুল কলেজের পরীক্ষা হলের অবস্থা! আর নকলের কথা না হয় না-ই বললাম। এই অবস্থা নিয়ে যখন কিছু তথাকথিত জ্ঞানীরা বলেন, মাদ্রাসা শিক্ষার সংস্কার করা উচিত।
তখন আমার ইচ্ছে করে তাদের মাথায় হাত বুলিয়ে কপালে চুমু দিয়ে বলি, বাপা, নিজের ঘরের খবর আছে? একদিন এক জেনারেল শিক্ষিত কওমী দরদী (?) ভাই বললেন, আমরা চাই কওমী মাদ্রাসা থেকেও ডাক্তার আর ইঞ্জিনিয়ার বের হবে। আমি বললাম, ঠিক আছে স্যার যেদিন থেকে স্কুল কলেজ থেকে ইমাম, মুহাদ্দিস, মুফতী বের হবে এর পরের দিন থেকেই কওমী মাদ্রাসা থেকে ডাক্তার আর ইঞ্জিনিয়ার বের হবে ইনশাল্লাহ।




সায়্যিদ কুতুব শহীদ (রহঃ) বলেন, ইসলামী জ্ঞানহীন জাগতিক শিক্ষা মানুষকে দিকহারা আর ভ্রান্ত করে গড়ে তুলে। যেখানে ইসলাম শিক্ষা অপশনাল বিষয় সেখানে ছাত্ররা কিভাবে মনুষত্ব শিখবে? সেখানেতো পরিমল, পান্না আর টাকার বিনিময়ে প্রশ্ন ফাঁসকারী টিচাররাই তৈরী হবে।

মঙ্গলবার, ৭ অক্টোবর, ২০১৪

পশ্চাত্য শিক্ষা, সাম্রাজ্যবাদীর আকড়া | মুফতী সিরাজী


বর্তমান পাশ্চাত্য শিক্ষা,

আমাদের ঐতিহ্য,
আমাদের ইসলামী সভ্যতা,
আমাদের সংস্কৃতি,
আমাদের সন্তানদের মেজাজ,
রাষ্ট্রীয় শাষকদের মেজাজ মস্তিষ্ক,
সব বিনষ্ট করার পায়তারা করছে

মুসলিম বিশ্বের সন্তানদেরকে
কুরআন হাদীস থেকে বিমুখ করে
তাদের বিলাতমুখী করছে,
এবং এতে তারা সফলও হচ্ছে|

ইহুদী,নাছারা ও খৃষ্টানদের
কোরআনদ্রোহী সভ্যতা তাদের
মস্তিষ্কে পুশইন
করা হচ্ছে,ফলে ইসলামের নাম
শুনলেই তাদের মাথা ব্যথা শুরু
হয়ে যায়, ধর্মীয় জ্ঞান না থাকার কারণে
ধর্মীয় বিধি-বিধান নিয়ে
আপত্তিজনক বাজে মন্তব্য করছে|

আলেম-উলামা,যারা নায়েবে
রাসূল,যারা আল্লাহপাকের নিকট
জগতে সবচেয়ে সম্মানী, হাসরের
ময়দানেও যারা হবেন
খোদায়ী ইজ্জতের অধিকারী,
বেহেশতে গিয়ে যারা হবেন
সর্ব
উচ্চস্থানে অধিষ্টিত,তাদের
শ্রদ্ধা ভক্তি প্রদর্শন করা তো দূরের কথা,
তাদের দেখলে
ঠাট্টা বিদ্রুপ উপহাস
করতেও দ্বিধাবোধ করেনা|

হে আল্লাহ মুসলিম বিশ্বকে
ইহুদী নাছারাদের কালো থাবা
থেকে উদ্ধার করুন,এবং প্রতিটি নর-
নারীকে আবশ্যিক পরিমান
ধর্মীয় ইলম শিক্ষা করে
তদনুযায়ী আমল করার
তৌফিক দান করুন,আ মী ন|
বি রাহমাতিকা ইয়া আরহামার
রাহিমীন,আল্লাহুম্মা আ মী ন |

বৃহস্পতিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৪

কওমি পরিচিতি

কওমি মাদ্রাসা এক ধরনের

বেসরকারি ইসলামি ধর্মীয়

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। 

এ ধারার

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সর্বপ্রথম প্রতিষ্ঠিত হয়

১৮৬৬ খ্রিষ্টাব্দে ভারতের সাহারানপুর

জেলার দেওবন্দ নামক স্থানে।


কওমি মাদ্রাসা সাধারণত

সরকারি আর্থিক সহায়তার

পরিবর্তে সাধারণ জনগণের সহায়তায়

পরিচালিত হয়। 

[১] ভারত , পাকিস্তান ও

বাংলাদেশে কওমি মাদ্রাসা বহুল

প্রচলিত। 

ভারত উপমহাদেশের

পাশাপাশি বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন

দেশেও কওমি মাদ্রাসা রয়েছে।

তবে উপমহাদেশের বাইরে এ ধরনের

প্রতিষ্ঠান সাধারণত দারুল উলুম বা

দেওবন্দি মাদ্রাসা নামে পরিচিত। 

[২]